গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় – সহজেই কিভাবে এডসেন্স পাবেন তার উপায়

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় - সহজেই কিভাবে এডসেন্স পাবেন তার উপায় গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়, গুগল এডসেন্স এর নিয়ম, গুগল এডসেন্স এর নিয়ম , গুগল এডসেন্স এর কাজ কি,অ্যাডসেন্স কি

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আজকের এই পোস্টে আমি বিস্তারিত বলব। কিভাবে আপনি খুব সহজেই অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পেয়ে যাবেন সে সম্পর্কে আমি চেষ্টা করব বিস্তারিত এই পোস্টে বলার জন্য। গুগল এডসেন্স কে আমরা বলি সোনার হরিণ। যেহেতু এটাকে আমরা সোনার হরিণ বলি সেহেতু এটা পেতে গেলে আমাদের কিছু করণীয় রয়েছে। সেসব বিষয়ে আলোচনা করব তার আগে আমাদেরকে জানাবো এডসেন্স টা আসলে কি?

Microjobtask থেকে আয় করতে চাইলে এই  লিংক এ ক্লিক করুনঃ Microjobtask Review

If you want to earn from Microjobtask, click on this link: Microjobtask Review

 

গুগল এডসেন্স কি?

গুগোল অ্যাডসেন্সে হচ্ছে গুগলের একটি অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্লাটফর্ম। এই প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে গুগোল এডভারটাইজ এর সকল কার্যক্রম পরিচালিত করে থাকে। এই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্লাটফর্মে আমরা কেউ পাবলিশার অথবা কেউ অ্যাডভারটাইজার হিসেবে কাজ করি। অ্যাডভারটাইজার হচ্ছে তারা যারা এডভেটাইজ করিয়ে থাকে । পাবলিশার হচ্ছে তারা যারা এই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট নিয়ে কাজ করে।

যেহেতু গুগোল অ্যাডসেন্সে কাজ করতে হলে অ্যাপ্রভাল এর প্রয়োজন হয়। তাই আমরা জেনে নিব অ্যাপ্রুভাল পেতে কি কি করণীয় রয়েছে।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য করনীয়ঃ

১। আপনাকে অবশ্যই একটি কাস্টম ডোমেইন ক্রয় করতে হবে। কাস্টম ডোমেইন বলতে বোঝানো হয়েছে ডটকম ডট নেট ডট ইনফো ইত্যাদি।

২। অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল নেওয়ার আগে আমাদেরকে মাথা রাখতে হবে, আমাদের ডোমেইন এর বয়স যেন মিনিমাম এক মাস হয় তবে। তবে ডোমেইনের বয়স তিন মাসের বেশি হলে ভালো হয়।

৩। অবশ্যই একটি এডসেন্স ফ্রেন্ডলি থিম টেমপ্লেট ব্যবহার করতে হবে।

৪। ওয়েবসাইটটিকে সুন্দরভাবে কাস্টমাইজেশন করতে হবে।

৫। সকল ধরনের প্রয়োজনীয় পেজ তৈরি করতে হবে যেমন, Privacy Policy, Terms & Condition, Contact Us, About Us, DMCA. etc.

৬। ওয়েবসাইটকে অবশ্যই ওয়েবমাস্টার টুল এ সেটাপ করতে হবে।

৭। ওয়েবসাইটে ত্রিশের অধিক পোস্ট লিখতে হবে তারপর আপনাকে এডসেন্স এর জন্য এপ্লাই করতে হবে। প্রতিটি পোষ্টের কমপক্ষে 500 ওয়ার্ড এর হতে হবে। তবে পোস্টগুলো যত বড় হবে তত ভালো হবে। আমি আপনাদেরকে সাজেস্ট করব আপনারা 1000 ওয়ার্ড এর উপরে লেখার চেষ্টা করবেন। তবে মনে রাখবেন আপনি পোষ্ট যতবেশি ওয়ার্ডের লিখবেন আপনার পোষ্ট তত বেশি রেঙ্ক করবে।

৮। ভুলেও কোন ধরনের কপি পোস্ট করবেন না। আপনি যদি কোনো পোস্ট কপি করে থাকেন তাহলে কিন্তু কখনো অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল আপনি পাবেন না। যদিও বা ভুল পেয়ে যান তা আবার হারাবেন।

যে কাজগুলো কখনোই করা যাবে নাঃ

১।  কোন ধরনের কফি পোস্ট করা যাবে না।

৩।  এডসেন্স পাওয়ার পর নিচে ক্লিক করা যাবে না।

৪।  একের অধিক এডসেন্স একাউন্ট ব্যবহার করা যাবে না

 গুগল এডসেন্স কেন ব্যবহার করবঃ

 পৃথিবীতে যত ধরনের পাবলিশার কোম্পানি রয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম এবং একমাত্র সেরা অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে গুগল এডসেন্স অ্যাডভার্টাইজমেন্ট সিস্টেম।  গুগল এডসেন্স সেরা তার কারণ হচ্ছে এটি গুগলের প্ল্যাটফর্ম।  এছাড়াও অন্যান্য publisher-site এর চাইতে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

শেষ কথাঃ 

 আপনি বা আপনারা যদি সত্যিই গুগল এডসেন্স নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে সেইভাবে প্রিপারেশন নিয়ে কাজ শুরু করতে হবে।  যেহেতু আমরা জানি গুগল এডসেন্স সকল ধরনের পাবলিশার এর চাইতে সেরা একটি প্লাটফর্ম এবং এখানে অ্যাপ্রভাল না হওয়ার পরেই কাজ করা সম্ভব তাই আমাদেরকে এমন কিছু কাজ করতে হবে যেন আমরা অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পাই।

 আমরা এমন কোন কাজ করব না যা থেকে আমাদের অ্যাডসেন্স এপ্রুভাল পাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।  আমরা এমন কোন পদ্ধতি অবলম্বন করব না যার মাধ্যমে গুগোল বুঝতে পেরে যায় যে আমরা চ্যাটিং করেছি।

 সবশেষে বলতে চাই আপনি যদি উপরের সকল নিয়ম মেনে চলেন তাহলে অবশ্যই গুগল এডসেন্স আর ফল পাবেন।  তাই উপরের নিয়ম গুলো ফলো করুন এবং এডসেন্স এর জন্য এপ্লাই করুন ইনশাল্লাহ আপনি  অ্যাডসেন্স পেয়ে যাবেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 2 =